Logo
বিজ্ঞপ্তি
DBC বাংলা News এর জেলা এবং উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে

সুষ্ঠু বিচারের দাবীতে বিক্ষুব্ধ জনতা কর্তৃক গোকুল ইউনিয়ন পরিষদ ও মহাসড়ক অবরোধ, আটক ১

মাহফুজ মন্ডল / ৯৪৯
রবিবার, ২১ জুন, ২০২০

সুষ্ঠু বিচারের দাবীতে সদরের গোকুলে শনিবার দুপুরে বিক্ষুব্ধ জনগণ ঢাকা-রংপুর মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন।

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়াঃ বগুড়া সদর উপজেলার গোকুল ইউনিয়ন পরিষদে সেবা গ্রহনকারী এক ব্যক্তিকে অশ্রাব্য ভাষায় গালাগালি ও চড় থাপ্পড় মারার ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান সওকাদুল ইসলাম সরকার সবুজকে ইউনিয়ন পরিষদে ঘন্টাব্যাপী অবরুদ্ধ করে রেখেছিলেন বিক্ষুব্ধ জনগণ। এছাড়াও এলাকার শত শত নারী পুরুষ একত্রিত হয়ে চেয়ারম্যান সবুজের বিচারের দাবীতে ঢাকা-রংপুর মহাসড়ক অবরোধ করে। অবরোধের সময় রাস্তার উভয় পার্শ্বে শতশত যানবাহন আটকা পড়ে। প্রায় আধা ঘন্টাব্যাপী এ অরোধের কারনে চরম দূর্ভোগে পড়তে হয় যাত্রী সাধারণদের। ২০ জুন শনিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে হাইওয়ে পুলিশ ও সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। এসময় গোকুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সওকাদুল ইসলাম সরকার সবুজ এর অসদাচরণের বিচার ও অপসারণের দাবীতে বিক্ষোভ করতে থাকে। এসময় বিক্ষুব্ধ জনগণ অবরুদ্ধ চেয়ারম্যানের কক্ষে জুতা স্যান্ডেল নিক্ষেপ করতে থাকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ চেয়ারম্যানের সহযোগী মোমিন নামে এক ব্যক্তিকে আটক করে। এ ঘটনায় অভিযোগ দেয়া হলে আইনত ব্যবস্থা নেয়া হবে, বগুড়া সদর থানার ওসি এস এম বদিউজ্জামান এমম আশ্বাস দিলে বিক্ষুব্ধ জনগণ শান্ত হয়। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। নির্যাতনের শিকার গোকুল গ্রামের মৃত মকবুল হোসেনের ছেলে শফিকুল ইসলাম রাঙ্গা জানান, গোকুল ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন একটি সমিতির জায়গা তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি। ঢাকা-রংপুর মহাসড়ক সম্প্রসারণ কাজে ওই সম্পত্তি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। বগুড়া জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের কর্মচারীরা শনিনার গোকুল মৌজার ক্ষতিগ্রস্থ ব্যক্তিদের ৮ ধারার নোটিশ দিচ্ছিলেন। রাঙ্গা বিবাদমান ওই জায়গার নোটিশ গ্রহন করায় চেয়ারম্যান তাঁকে অশ্রাব্য ভাষায় গালমন্দ করেন এবং চড় থাপ্পড় মারেন। এসময় চেয়ারম্যানের নির্দেশে তার সহযোগী মোমিন চেয়ারম্যানের সামনেই রাঙাকে বেধড়ক মারপিট করেন। এসময় ইউনিয়ন পরিষদে উপস্থিত লোকজন বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। খবর পেয়ে আশপাশের লোকজন লাঠিসোটা নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে আসলে চেয়ারম্যান ভয়ে প্রাণ বাঁচাতে পরিষদের নিজ কক্ষে গিয়ে অবস্থান নেন। পরে পুলিশ এসে অবরুদ্ধ চেয়ারম্যানকে উদ্ধার করেন। এ ঘটনায় মারপিটের শিকার রাঙ্গা বাদী হয়ে পুলিশের হাতে আটক মৃত উজির উদ্দিনের ছেলে মোমিন ও মৃত সোলায়মানের ছেলে সোহেল সহ অজ্ঞাত ৮/১০ জনের বিরুদ্ধে সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। বগুড়া সদর থানার ওসি জানান, গোকুলের ঘটনাটির ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে, তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ব্যাপারে মতামত নেয়ার জন্য চেয়ারম্যানের ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করা হলে, তিনি জানান, এ বিষয়ে আপোষের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। অতি দ্রুত ইউনিয়ন পরিষদে উভয়পক্ষ বসে বিষয়টি সমাধান করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও
Theme Created By ThemesDealer.Com